ঢাকা, ২৪ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার, ২০২০ || ৯ আশ্বিন ১৪২৭
 নিউজ আপডেট:

জিকরুল ইসলামের জন্য কুড়িগ্রামে আনন্দের জোয়ার

ক্যাটাগরি : বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি প্রকাশিত: ১৯৪৫ঘণ্টা পূর্বে   ৩৪


জিকরুল ইসলামের জন্য কুড়িগ্রামে আনন্দের জোয়ার

এজি লাভলু, কুড়িগ্রাম:

সারাবিশ্ব যখন করোনা ক্রান্তিকালে জীবনযাত্রা অর্থনৈতিক অবস্থান থেকে সবকিছুই স্থবির । তখনই আশার আলো দেখিয়েছে গ্লোব ফার্মাসিউটিক্যালস গ্রুপের সহযোগি প্রতিষ্ঠান গ্লোব বায়োটেক লিমিটেড। করোনাভাইরাস প্রতিরোধ ভ্যাকসিন আবিস্কার করতে সক্ষম হওয়ার কথা জানিয়েছে। যা আগামী ৬ থেকে ৭ মাসের মধ্যে করোনাভাইরাসের ভ্যাকসিন বাজারে আনা সম্ভব বলে আশা করেছেন। বাংলাদেশ মেডিকেল রির্সাচ কাউন্সিলের নিয়ম কানুনের ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের অনুমোদনের অপেক্ষায়। 

ভ্যাকসিন আবিস্কারের কমিটির অন্যতম সদস্য জিকরুল ইসলামের বাড়ি কুড়িগ্রামে হওয়ায় এলাকায় বইছে আনন্দের জোয়ার। কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার কাঁঠালবাড়ি ইউনিয়নের তালুক কালোয়া গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে জন্ম। পিতা পানি উন্নয়ন বোর্ডে চাকুরি করে এখন অবসরে। জিকরুল ইসলাম এলাকায় সবার কাছে শামীম নামে পরিচিত। তার প্রাথমিক শিক্ষাজীবন কেটেছে নেপারদরগা সরকারী বিদ্যালয়ে এরপর কুড়িগ্রাম সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়। এসএসসি কৃতিত্বের সাথে পাশ করে ভর্ত্তি হন রংপুর পুলিশ লাইন কলেজে। এইচএসসি সফলতার সাথে পাশ করে ভর্ত্তি হন রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের জেনেটিক ইঞ্জিনিয়ারিং এন্ড বায়ো টেকনলজি বিভাগে কৃতেত্বের সহিত অর্নাস ও মাস্টার্স শেষ করে ২০১৬ সাল থেকে গ্লোব বায়োটেক লিমিটেডে বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা হিসাবে সফলতার সহিত চাকুরি করতেছেন।

জিকরুলের বাল্যবন্ধু জামিল কালাম হালিমের সহিত কথা বলে জানা যায় জিকরুল ছোট বেলা থেকে মেধাবী ছিল। ক্রিকেট ভালই খেলত পড়াশুনা ঠিকমত করতো ওর প্রতিটি কাজে মেধার পরিচয় দিত।

স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষক রইচ উদ্দিন বসুনিয়া রয়েল জানান ক্লাশে জিকরুল সবার থেকে আলাদা ছাত্র ছিল দ্ষ্টুামি করলেও ক্লাশে মেধার সাক্ষর রাখত। আমার ছাত্রের মঙ্গল কামনা করি।

তার ছোট বোন ফেরদসী আকতার পুন্নি বলেন ভাইয়া সবসময় মেধাবী কাজ করতেন ভ্যাকসিন আবিস্কারের কথা শুনে খুশি হয়েছি।

জিকরুলের পিতা আহম্মেদ আলী জানান আমার ছেলে যে কাজটি করেছে অব্যশই প্রশংসার দাবিদার আমি দেশবাসির কাছে আমার ছেলের জন্য দোয়া চাই।

মোবাইল ফোনে জিকরুল ইসলামের সাথে কথা হলে তিনি জানান করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন আবিস্কারে আমিও যেমন ছিলাম তেমনি সবচেয়ে বেশি সাফল্যর দাবিদার আমার ডঃ কাকন নাগ স্যার, নাজনিন সুলতানা ম্যাম, ডঃ মোঃ মহিউদ্দিন স্যার, ডঃ আসিফ মাহমুদ স্যার আমি কুড়িগ্রামের সন্তান হিসেবে কুড়িগ্রামবাসির কাছে দোয়া চাই যাতে আমরা সফল হতে পারি।

শেয়ার করুনঃ
আপনার মতামত লিখুন: